স্মার্ট কার্ড কবে পাবেন বাংলাদেশের মানুষ

386

আঙুলের ছাপ আর আইরিশের ছবিযুক্ত স্মার্ট কার্ড কবে হাতে পাবেন বাংলাদেশ এর নাগরিকরা? দেশে বর্তমানে ভোটার সংখ্যা ১০ কোটি ১৮ লাখ। এ পর্যন্ত স্মার্ট কার্ড পেয়েছেন মাত্র ১ কোটির কিছু বেশি নাগরিক। চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে প্রত্যেককে স্মার্ট কার্ড দেওয়ার  ঘোষণা দিলেও তা সম্ভব হচ্ছে না। প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতির অভাবে থমকে গেছে এই প্রকল্প। বিদেশি ঠিকাদারের সঙ্গে কথাবার্তা পাকা না হওয়ায় নির্বাচন কমিশনের এনআইডি উইং নিজেরাই স্মার্ট কার্ড তৈরি ও বিতরণের উদ্যোগ নিয়েছে। এজন্য ইসিকে কারিগরি সহযোগিতা দিতে একটি কমিটিও গঠন করা হয়েছে।

দশ আঙুলের ছাপ ও  চোখের আইরিশের ছবি সংগ্রহে অন্তত এক হাজার ডিভাইস কেনার সুপারিশ করা হয়েছে। দ্রুত এসব সামগ্রী কেনা না হলে উপজেলা পর্যায়ে স্মার্টকার্ড বিতরণের কাজ মুখ থুবড়ে পড়বে বলেই আশঙ্কা সংশ্লিষ্টদের। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিতরণ শুরুর পর ১০ মাসে এক কোটি নাগরিকের হাতেও পৌঁছায়নি স্মার্ট কার্ড। বর্তমান গতিতে কাজ চললে আরও অন্তত বছরদুয়েক লাগবে বাংলাদেশের ৯ কোটি ভোটারের হাতে স্মার্টকার্ড পৌঁছাতে। সম্প্রতি নির্বাচন কমিশনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি), নির্বাচন কমিশনার, ইসি সচিব, জাতীয় পরিচয়পত্র অনুবিভাগের (এনআইডি) মহাপরিচালক ও কারিগরি টিমের সদস্যদের বৈঠকে এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। বৈঠকে বর্তমান পরিস্থিতি সামাল দিতে চলতি মাসেই সরকারি অর্থায়নে অন্তত প্রতি উপজেলার জন্য এক জোড়া করে ডিভাইস কেনার প্রস্তাব করা হয়, যা দিয়ে বড় পরিসরে স্মার্ট কার্ড বিতরণে যাওয়া সম্ভব হবে।

জানা গেছে, ফ্রান্সের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে স্মার্ট কার্ড সংক্রান্ত চুক্তি বাতিলের পর নতুন সংকটের মধ্যে সরকারের অর্থায়নে প্রযুক্তি কিনতে যাচ্ছে ইসি। বিদেশি সংস্থার সঙ্গে চুক্তি শেষ হওয়ায় এত অর্থায়ন নিয়ে আর এগোতে পারছে না সাংবিধানিক সংস্থাটি। এক্ষেত্রে কারিগরি টিম কাজের সুবিধার্থে উপজেলাভিত্তিক ন্যূনতম প্রযুক্তি কেনার সুপারিশ করে। জাতীয় পরিচয়পত্র অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাইদুল ইসলাম গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, চলতি বছরের নভেম্বর মাস থেকে ১ কোটি ১৮ লাখ নতুন ভোটারকে লেমিনেটিং কার্ড দেওয়ার জন্য কর্ম পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। ইসির অনুমোদন পেলেই এই কার্ড বিতরণ করা শুরু হবে।

You might also like More from author

Leave A Reply

Your email address will not be published.