চলে গেলেন শোভা সেন

430

চলে গেলেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বিখ্যাত নাট্যব্যক্তিত্ব শোভা সেন। ১৩ আগস্ট রবিবার ভোররাতে তার দক্ষিণ কলকাতার বাড়িতে বার্ধক্যজনিত কারণে এই কিংবদন্তী নাট্যব্যক্তিত্বের প্রয়াণ ঘটেছে বলেই জানিয়েছে তার পারিবারিক সূত্র। মৃত্যুকালে শোভা সেনের বয়স হয়েছিল ৯৫ বছর।

তার প্রয়াণ কলকাতার নাট্যজগতের একটি যুগাবসান বলেই স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলোতে মন্তব্য করেছেন সেখানকার নাট্যজগত সংশ্লিষ্টরা।

১৯৬০ সালে নাট্য কিংবদন্তী ও প্রখ্যাত অভিনেতা উৎপল দত্তের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন শোভা সেন। তাদের একমাত্র সন্তান বিষ্ণুপ্রিয়া দত্ত।

মঞ্চের পাশাপাশি বেশ কিছু উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন শোভা সেন। তার অভিনীত চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে প্রখ্যাত চলচ্চিত্র নির্মাতা ঋত্বিক ঘটকের অসমাপ্ত কাজ ‘বেদেনী’। ১৯৭২ সালের হিন্দি চলচ্চিত্র ‘এক আধুরি কাহানি’, ১৯৭৯ সালের মৃণাল সেনের বাংলা চলচ্চিত্র ‘একদিন প্রতিদিন’, বৈশাখী মেঘ (১৯৮১, বাংলা চলচ্চিত্র), ‘পসন্দ আপনি আপনি’ (১৯৮৩, হিন্দি চলচ্চিত্র), দেখা (২০০১ সাল, বাংলা চলচ্চিত্র), শ্যাডোজ অব টাইম (২০০৪ সাল, বাংলা চলচ্চিত্র)।

একটা সময় কলকাতার যে প্রজন্মকে দেখে তরুণদের মঞ্চে আসার, অভিনয়ের অণুপ্রেরণা জাগতো; শোভা সেন ছিলেন সেই প্রজন্মের অন্যতম প্রতিনিধি।

শম্ভু মিত্র, উৎপল দত্ত, তাপস সেন, কুমার রায়, খালেদ চৌধুরী- এইসব মঞ্চ কিংবদন্তীদের কেউই আর বেঁচে নেই। ছিলেন কেবল শোভা সেন।

আমৃত্যু নারীশিল্পীদের অধিকার, নারীশিল্পীদের খুঁজে বের করা, মঞ্চে নারীশিল্পীদের সামনের সারিতে নিয়ে আসার কাজে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছিলেন তিনি। শোভা সেনের মৃত্যুতে শুধু কলকাতা নয়, বাংলা থিয়েটারেই যেন এক বিশাল শূন্যতার সৃষ্টি হলো।

You might also like More from author

Leave A Reply

Your email address will not be published.